Monday, 11 May 2020

আপনার অনুপ্রেরণামূলক দক্ষতা কীভাবে উন্নত করবেন, সিরিজ-১১২(প্রেরণা)[How to Improve Your Motivational Skill, Series-112(Prerana)]



প্রেরণা সিরিজ ১১২,PRERANA SERIES-112 (Motivational & Inspirational)
লেখক – প্ৰদীপ কুমার রায়।

আগেই বলে নিচ্ছি কেননা তোমরা পরে ভুলে যাবে বাকি অন্যান্যদের  সাহায্যের উদ্দেশ্যে শেয়ারটা মনে করে,করে দেবে এবং ডানদিকের উপরের কোনে অনুসরণ বাটন অবশ্যই ক্লিক করে অনুসরণ করবে।শুরু করছি আজকের বিষয়   নমস্কার বন্ধুরা আমি প্রদীপ  তোমাদের সবাইকে আমার এই Pkrnet Blog  স্বাগতম।  আশা করি সবাই তোমরা  ভালোই  আছো  আর  সুস্থ আছো।


আমার ওয়েবসাইটে যেতে এখানে ক্লিক করুন

সেই ব্যক্তি কিঞ্চিৎ আপনার শত্রূ নয়, যে আপনার ভুলত্রূটি আর দুর্বলতাগুলিকে বার বার স্মরন করিয়ে দেন, বরং আপনার শত্রূ হলো ঐ ব্যক্তি যে আপনাকে ভূল দিশায় যেতে দেখেও আপনাকে বাধা  না দিয়ে হাঁসতে থাকে আর আপনাকে সংশোধনের চেষ্টাও করেন না।বিরোধ করা ব্যক্তি আপনার শত্রূ  নয়, বরং খারাপ কাজের বিরোধ না করা লোকই আপনার শত্রূ ।আজকাল 'আপন' আর 'পর' - এর পরিভাষা বদলে গেছে।লোকে  মনে করে স্বজন আত্মীয় তারাই যারা যে কোন পরিস্থিতিতে আমাদের সঙ্গ দেয়, কিন্তু বাস্তবে প্রিয়জন হলো তারাই যারা খারাপ কর্ম করা থেকে আমাদের বাঁচান।দুর্যোধন যদি কাকা বিদুরের কথা মেনে নিতেন, তাহলে মহাভারতের যুদ্ধ হতোনা।রাবন যদি তার ভাই বিভীষনের কথা মেনে নিতেন তাহলে লঙ্কা বিধ্বংস হতো না।মিত্র তারাই যারা আমাদের মতিভ্রম সুধরে দেয়, জীবনের গতি দিয়ে দেয়। 

মানুষ সামান্য দান করেই নিজেকে দাতা হিসেবে,সকলের সামনে তা তুলে ধরে! অথচ ঈশ্বর এই সমগ্র বিশ্ব-ব্রহ্মান্ড দান করেও নিজেকে সর্বদা লুকায়িত রেখেছে। সে ভুলে যান তার যা আছে সমস্ত কিছু ঈশ্বরই দিয়েছে। মানুষ পুন্য করার সময় চিন্তা করে, ঈশ্বর তাকে এর বিনিময় সুখলাভ দিবে! অথচ সে পাপ করার সময় ভুলে যায় তার এই পাপের জন্য তাকে সাজা দেওয়া হবে। আর পাপের পরিনাম সদা কষ্টই হয়, আর এটাই চরমসত্য! কিন্ত মানুষ কখনও চিন্তাই করেনা, তার পাপের বিষয়ে! মানুষ সামান্য কিছু করেই নিজেকে শ্রেষ্ঠ ভাবে, অথচ ঈশ্বর জগতের সমস্ত কিছু কার্যাদি করেও নিজের শ্রেষ্ঠত্ব দাবী করার প্রয়োজন মনে করেনা। যার কৃঞ্চিত করেই মানুষ ভাবে সবকিছু করে ফেলেছে। মানুষ যখন পাপ করে তখন সে ভুলে যায়, এর পরিনাম সাজা, কষ্ট, যন্ত্রনা তাকে ভোগ করতে হবে। আর বস্তত সেটাই সর্বদা ঘটে থাকে। কিন্ত আমরা যখন এর ফল পাই। তখন আমরাই আবার ঈশ্বরকে দোষারোপ করি! হে ঈশ্বর, এত কষ্টময় জীবন কেন দিলে? আমরা ভুলে যাই, আমাদের পাপের কথা, আমাদের কৃত কর্মের কথা!

মানুষ চিন্তা করে ঈশ্বর যেনো সর্বদা তাকে সুখী রাখে, অথচ ঈশ্বরের এই জগতে কত মানুষ দুঃখী, কতো অভাবী! যারা সবসময় তাদের সাহায্য প্রার্থনা করে, কিন্ত তারা কখনই তাদের দিকে দৃষ্টিপাত করিনা! অথচ তারাই সবসময় ঈশ্বরের কাছে কামনা করে তাদের সুখের জন্য! মানুষ এমন জীবন চায়, যে জীবন হোক সফলতাময়, কিন্ত সেই সফলতার জন্য মানুষ শ্রম করতে চায় নাহ! মানুষ অন্যের অর্জনে হিংসা করে, ঈর্ষা করে, লোভ করে,অথচ সে জানেই নাহ! সে চাইলেই এগুলো অর্জন করতে পারে। আর সে তার লক্ষ্যে অর্জন করতে পারে!মানুষ তার সমগ্র জীবনে সর্বদা ইহোকালেরই চিন্তা করে, আর তার জন্য ধন, দৌলত, ঐর্শয্য, যশ, খ্যাতি অর্জন করে! অথচ সে বুঝতেই চায়না, তার মৃত্যুর সময় কিছুই যাবেনা! সে ভুলেই যায় তার পরকাল নিয়ে, আর ভোগ বিলাসে মত্ত হয়ে পড়ে। আর তার পরিনাম পরলোকে কেবল যন্ত্রণাময়। 


মানুষ মৃত্যু অবধারিত জেনেও, এমন ভাবে জীবন নির্বাহ করে, যেনো সে কখনও মরবেই নাহ! অথচ মৃত্যু উপস্থিত হয়েই যায়। আর মানুষ তখন এমন ভাবে ভেঙে পড়ে যেনো সে কখনও জানতোই না তার মৃত্যু নিশ্চিত ছিলো! আর মৃত্যু কখনও বলে কয়ে আসে না! আর মানুষ সর্বদা অপ্রস্তুতই থাকে।আমরা মানুষ নিজেদের কতো চালাকই নাহ্ ভাবি!আসলে বস্তুত আমাদের মতো বোকা অন্য কোনো প্রানীই হয়তো নেই। কারন আমরা জগতের শ্রেষ্ঠ জীব তথা বুদ্ধিমান প্রানী হয়েও সবচাইতে বড় বোকামী টা আমরাই করি। আর তার পরিনামও আমাদেরই ভোগ করতে হয়। আর পরে আমরাই ঈশ্বরকে দোষারোপ করি এমন পরিনামের জন্য।

জীবনে অনুপ্রেরণার গুরুত্ব যে কতটা, তা আমরা কমবেশি  প্রত্যেকেই জানি। প্রত্যেক মানুষই চায়  তারা যেন সর্বদা অনুপ্রাণিত থাকেন। এই অনুপ্রেরণা মূলক বিচার গুলিকে বাস্তব জীবনে ঠিক  মত মেনে চললে যে কোনো মানুষের জীবন অনয়াসেই বদলে যেতে পারে

মোটিভেশনাল ভিডিও দেখতে উপরের ডানদিকের কর্নারে YouTube লিঙ্ক অথবা এখানে Pkrnet এই লিঙ্কটির উপর ক্লিক করুন।
এতক্ষণ সময় দিয়ে পড়ার জন্যে তোমাকে  অসংখ্য ধন্যবাদ জানাই  পিকেআর নেট  ব্লগ - এর পক্ষ থেকে | 
পোস্টটা ভালো লেগে থাকলে অবশ্যই একটু Comment করে তোমার মতামত আমায় জানিও |তোমার মূল্যবান মতামত আমাকে বাড়তি অনুপ্রেরণা যোগাতে ভীষনভাবে সাহায্য করে।

No comments:

Post a comment