Friday, 27 March 2020

আদর্শবাদ - এটি প্রাচীনতম বটে ও সর্বকালীনও বটে ,কোনদিন এর পরিবর্তন সম্ভব নয় |[How to Improve Your Motivational Skill, Series-100(Prerana)]


প্রেরণা সিরিজ - ১০০,PRERANA SERIES-100 (Motivational & Inspirational)

লেখক – প্ৰদীপ কুমার রায়।

আগেই বলে নিচ্ছি কেননা তোমরা পরে ভুলে যাবে বাকি অন্যান্যদের  সাহায্যের উদ্দেশ্যে শেয়ারটা মনে করে,করে দেবে এবং ডানদিকের উপরের কোনে অনুসরণ বাটন অবশ্যই ক্লিক করে অনুসরণ করবে।শুরু করছি আজকের বিষয় 
নমস্কার বন্ধুরা আমি প্রদীপ  তোমাদের সবাইকে আমার এই Pkrnet Blog   স্বাগতম।আশা করি সবাই তোমরা  ভালোই  আছো  আর  সুস্থ আছো।

                                   আমার ওয়েবসাইটে যেতে এখানে ক্লিক করুন
সামনে পরীক্ষা, অথচ আপনার ছেলে পড়াশোনায় মন দিচ্ছে না। আপনি চিন্তিত। তাকে ধমক দিচ্ছেন বেশি করে পড়ার জন্য। কিন্তু তার আসল সমস্যাকে আপনি ধরতে পারছেন না। তার আসল সমস্যাটা কী? সে-ও বুঝতে পারছে যে আরও বেশি করে তার পড়া দরকার, কারণ সামনে পরীক্ষা। চিন্তার স্তরে সে ঠিকই আছে। তার সমস্যা হলো, চিন্তাকে সে আবেগের স্তরে নিয়ে আসতে পারছে না। সে বলে, পড়তে ভালো লাগছে না। চিন্তাকে কীভাবে আবেগের স্তরে (thought of feeling) নিয়ে আসতে হয় তা সে শেখেনি। কেউ তাকে এ- জিনিস শেখায়নি। সুতরাং, তার শিক্ষাপদ্ধতিতে ফাঁক থেকেই যায়। দ্বিতীয়ত, পরীক্ষার ঠিক আগে চিন্তা আবেগের স্তরে এলেও পরে কর্ম স্তরে (action level) কিভাবে এগোতে হয় তা তার জানা নেই। পরীক্ষার আগে কি সে সব-কটি বই প্রথম থেকে শেষ পৃষ্ঠা অবধি পড়ে যাবে? অথবা  মূল (important )বিষয়গুলি বেছে নিয়ে বাড়িতে লেখার ওপর জোর দেবে? চিন্তা -আবেগ- কর্মের সমন্বয় করতে হয়। এভাবেই মানুষের মধ্যে পরিবর্তন আসে। বর্তমান শিক্ষাপদ্ধতিতে জোর দেওয়া হয় বুদ্ধির ওপর (thought level) এবং কর্মের ওপর (job skill), কিন্তু ভাব বা আবেগের দিকটি থাকে উপেক্ষিত।

আদর্শেরও একটা ক্রমবিকাশ আছে | আদর্শ সম্বন্ধে মানুষের ধারণা একদিনেই ভূমি খুঁজে পায় নি | দূর-দৃষ্টি, দূর-চিন্তা, পশ্চাতের অভিজ্ঞতা, ইতিহাস, পরীক্ষা-নিরীক্ষা, উন্নততর জীবনের উত্তরণের সাধনা আদর্শ সম্বন্ধে নিত্য নতুন সংজ্ঞা দিয়ে গেছে | আজকের সমাজ এই পুরো ইতিহাসের মালিক, পুরো ঐতিহ্যের শরিক | আজকের মানুষ তাই যখন নিজের আদর্শ কি, ভাবতে বসে তখন সব কটা সম্ভাব্য আদর্শ সামনে এসে দাঁড়ায় | শিল্পী ভাবছে তার শিল্প সৃষ্টির আদর্শ কি হবে ? কোন আদর্শের রূপায়ণে জীবন শক্তি উৎসর্গ করবে ? শিক্ষক ভাবছেন ছাত্র কোন আদর্শে তৈরী করব ? লেখক ভাবছেন কোন আদর্শ লিখব ? আর সাধারণ ভাবছে বেঁচে থাকার আদর্শ কি ? হয়তো যুগ যুগ ধরে এই ভাবে আদর্শের হাত ধরে উন্নতিকল্পে চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন | বলা যায় আদর্শ যেন একটা মডেলের ন্যায় | তা দেখেই জীবন গড়ার চেষ্টা চলছে | ঐতিহাসিক ক্রম অনুসররণ করলে আমরা প্রথমেই পাই আদর্শ - আদর্শবাদ | আইডিয়ালিজিম - এটি প্রাচীনতম বটে ও সর্বকালীনও বটে | কোনদিন এর পরিবর্তন সম্ভব নয় |
কেউ যদি একটি শিশুকে দুই বছর বা এক বছর বয়সে তাকে দেখে এবং ৪০ বছর বয়সে তাকে দেখে তাহলে সে দেখবে যে ইতিমধ্যে শিশুটির রূপ সম্পূর্ণ পরিবর্তিত হয়েছে, তার দেহের, মনের, বুদ্ধির পরিবর্তন হয়েছে। তবুও সেই লোকটি একই লোক অর্থাৎ তার মধ্যে একটিই সত্তা রয়েছে, যার পরিবর্তন হয় না। সেইটিই হচ্ছে আত্মা, সেটিই হচ্ছে জীবের আসল স্বরূপ, ব্যক্তিত্বের কেন্দ্র। আর একটি প্রমাণ হচ্ছে - ধরুন আপনার দিদিমা বাড়ীতে শুয়ে আছেন দেখে আপনি বাজার করতে গিয়েছেন। বাজারে আপনি শুনতে পেলেন যে আপনার দিদিমা মারা গেছেন। বাড়ী ফিরে এসে দেখছেন বাজার যাওয়ার আগে দিদিমা যেভাবে খাটের উপর শুয়ে ছিলেন এখনও ঠিক সেই রকম ভাবেই শুয়ে আছেন এবং তাঁর চার পাশে ঘিরে আপনার বাবা বলছেন, "ও আমার মা চলে গেলে" - ভাই বলছে, "দিদিমা চলে গেল" ইত্যাদি। আপনি দেখতে পাচ্ছেন আপনার দিদিমা খাটে শুয়ে আছে, আবার সবাই চিৎকার করছে, 'মা চলে গেল' দিদিমা চলে গেল' ইত্যাদি। এখন প্রশ্ন হচ্ছে - কে চলে গেল? সেইটাই হচ্ছে আত্মা। আত্মা চলে গেলে শরীর জড় অবস্থা প্রাপ্ত হয়। শরীরে কোন চেতনার লক্ষণ দেখা যায় না, অর্থাৎ শরীরটা অচেতন হয়ে যায়। এর থেকে আমরা বুঝতে পারি যে আমি এই 'দেহ' নই 'মন' নই-- আমি হচ্ছি চিন্ময় 'আত্মা'।

জীবনে অনুপ্রেরণার গুরুত্ব যে কতটাতা আমরা কমবেশি  প্রত্যেকেই জানিপ্রত্যেক মানুষই চায়  তারা যেন সর্বদা অনুপ্রাণিত থাকেন এই অনুপ্রেরণা মূলক বিচার গুলিকে বাস্তব জীবনে ঠিক  মত মেনে চললে যে কোনো মানুষের জীবন অনয়াসেই বদলে যেতে পারে মোটিভেশনাল ভিডিও দেখতে উপরের ডানদিকের কর্নারে YouTube লিঙ্ক অথবা এখানে Pkrnet এই লিঙ্কটির উপর ক্লিক করুন। এতক্ষণ সময় দিয়ে পড়ার জন্যে তোমাকে  অসংখ্য ধন্যবাদ জানাই  পিকেআর নেট  ব্লগ - এর পক্ষ থেকে | পোস্টটা ভালো লেগে থাকলে অবশ্যই একটু Comment করে তোমার মতামত আমায় জানিও |তোমার মূল্যবান মতামত আমাকে বাড়তি অনুপ্রেরণা যোগাতে ভীষনভাবে সাহায্য করে।

No comments:

Post a comment