Tuesday, 17 March 2020

আপনার অনুপ্রেরণামূলক দক্ষতা কীভাবে উন্নত করবেন, সিরিজ-৯৭(প্রেরণা)[How to Improve Your Motivational Skill, Series-97(Prerana)]

প্রেরণা সিরিজ - ৯৭,PRERANA SERIES-97(Motivational & Inspirational)
লেখক – প্ৰদীপ কুমার রায়।

আগেই বলে নিচ্ছি কেননা তোমরা পরে ভুলে যাবে বাকি অন্যান্যদের  সাহায্যের উদ্দেশ্যে শেয়ারটা মনে করে,করে দেবে এবং ডানদিকের উপরের কোনে অনুসরণ বাটন অবশ্যই ক্লিক করে অনুসরণ করবে।শুরু করছি আজকের বিষয় 
নমস্কার বন্ধুরা আমি প্রদীপ  তোমাদের সবাইকে আমার এই Pkrnet Blog   স্বাগতম।আশা করি সবাই তোমরা  ভালোই  আছো  আর  সুস্থ আছো।
আমার ওয়েবসাইটে যেতে এখানে ক্লিক করুন

দুশ্চিন্তা কখনোই আগামী দিনের সমস্যা দূর করতে পারে না , বরং আজকের শান্তি দূর করে দেয়। কঠিন সময়ে বুদ্ধিমান লোক রাস্তা খোঁজে আর ভীতু লোক খোঁজে বাহানা। জীবনের রাস্তাটা বেশ চড়াই হলেও, চূড়া থেকে দৃশ্যটা সুন্দর। অনুকরণ নয়, অনুসরণ নয়, নিজেকে খোঁজ ,নিজেকে যেন, নিজেকে তৈরী করো। খেলায় হেরে যাওয়া মানুষ আবার জিততে পারে কিন্তু মন থেকে হেরে যাওয়া মানুষ কখনোই জিততে পারবে না। পরের উপকার অবশ্যই করা উচিত কিন্তু নিজেকে পথে বসিয়ে নয়। দূরের কোনো অস্পষ্ট জিনিসের থেকে কাছের স্পষ্ট জিনিস অনেক ভালো।মন,বুদ্ধি ,হৃদয়,শরীর ও আত্মা -এই পাঁচটি আধার যখন শান্ত ও স্থির হয়ে যায় তখন মানুষ করুনায় ভরে যায়। তুমি যদি সামান্যকে বড় করে দেখো তাহলে কখনও সমাধানের পথ খুঁজে পাবে না। 

ক্রিকেটার রাহুল দ্রাবিড়কে ব্যাঙ্গালোর বিশ্ববিদ্যালয় ডক্টরেট উপাধি দিয়েছিল, রাহুল দ্রাবিড় সেটা ফিরিয়ে দিয়েছেন। শুধু ফিরিয়ে দিয়েছেন তা নয়, তারসাথে চমৎকার একটি বক্তব্য দিয়েছেন, তিনি বলেছেন- আমার স্ত্রী ডাক্তার, সে এই উপাধি পেতে অসংখ্য বিনিদ্র রজনী দিবস কাটিয়েছে। আমার মা কলা বিভাগের অধ্যাপক, তিনি এই ডিগ্রীর জন্য দীর্ঘ পঞ্চাশ বছর অপেক্ষা করেছেন, অধ্যবসায় করেছেন। ক্রিকেট খেলতে অনেক পরিশ্রম করেছি ঠিক, কিন্তু সেই পরিমাণ পড়াশুনা আমি করিনি, কাজেই এই ডিগ্রী আমি নেবো  কীভাবে?
আইনস্টাইনকে ইসরায়েল সরকার ১৯৫২ সালে দেশটির প্রধানমন্ত্রী হতে আমন্ত্রণ জানিয়েছিল। আইনস্টাইন বিনীতভাবে বলেছিলেন- আমি ফিজিক্সের আনাড়ি ছাত্র। রাষ্ট্র পরিচালনার আমি কি বুঝিপেরোলমান নামের জগতবিখ্যাত গণিতবিদ সারা পৃথিবীতে গণিত বিষয়ের নোবেল পুরস্কার বলে পরিচিত ফিল্ড মেডেল এবং পুরস্কারের বিশাল অর্থ ফেরত দিয়েছিলেন। তিনি বলেছিলেন- খুব অভাবের সংসার ছিল আমাদের। মায়ের পয়সা বাঁচাতে হিসেব করে চলতে হতো আমাদের। সেইসূত্রে গনিতে একটু দক্ষতা দেখাতে পেরেছি। এখন সেই অভাব নেই, কাজেই এতো অর্থ দিয়ে কি করবো?
এই মানুষগুলির বিনয় দেখে সম্মানে লজ্জায় মাথা নিচু হয়ে আসে। নিজের, নিজেদের দিকে তাকালে দেখতে পাই অবিনয়ী, দাম্ভিক, কিম্ভূতকিমার মানুষের প্রতিচ্ছবি। এই মানুষগুলি বারবার মনে করিয়ে দেয় বিনয়ী হওয়া মানে ছোট হয়ে যাওয়া নয়, আরও অনেক বড় হয়ে যাওয়া। কারণ আমরা ছোট হই আমাদের অবিনয়ী উদ্ধত দাম্ভিকতায়, আমরা বড় হই বারবার আমাদের বিনয়ী হয়ে ছোট হওয়ার চেষ্টায়। পৃথিবীর সবচেয়ে অদ্ভুত সত্য হচ্ছে- বড় হতে গেলে ছোট হতে হয়, ছোট হতে গেলে বড় হওয়ার প্রয়োজন হয়নামনে রাখা প্রয়োজন, বিশ্ববিদ্যালয়ের পরীক্ষায় ভালো বা খারাপ নম্বরের সঙ্গে জীবনের পরীক্ষায় পাওয়া নম্বরের প্রায়ই কোনো সঙ্গতি থাকে না। আরো যা ভাববার বিষয়, আজও কেন আমাদের পরীক্ষা পদ্ধতি মানুষের যথার্থ গুণাবলীর মূল্যায়ন করতে সক্ষম হয় না, যা সত্যিই ভাববার বিষয়।।
শুধুমাত্র পরীক্ষায় ভালো নম্বর পাওয়াটাই কি জীবন শিক্ষার মূল উদ্দেশ্য ? হয়তো না, সুন্দর,সুস্থ মনের অধিকারী হয়ে নিজের সাধ্যের মধ্যে থেকেই সমাজের দরিদ্র, নিপীড়িত অসহায় মানুষগুলোর প্রতি একটু সহানুভূতির হাত বাড়িয়ে দেওয়া অর্থাৎ জীব জ্ঞানে শিব সেবা করা। যার প্রকৃত দৃষ্টান্ত হলেন আমাদের সবার প্রিয় স্বামীজী |জীবনে অনুপ্রেরণার গুরুত্ব যে কতটাতা আমরা কমবেশি  প্রত্যেকেই জানি।প্রত্যেক মানুষই চায়  তারা যেন সর্বদা অনুপ্রাণিত থাকেনএই অনুপ্রেরণা মূলক বিচার গুলিকে বাস্তব জীবনে ঠিক  মত মেনে চললে যে কোনো মানুষের জীবন অনয়াসেই বদলে যেতে পারে 

মোটিভেশনাল ভিডিও দেখতে উপরের ডানদিকের কর্নারে YouTube লিঙ্ক অথবা এখানে Pkrnet এই লিঙ্কটির উপর ক্লিক করুন।
এতক্ষণ সময় দিয়ে পড়ার জন্যে তোমাকে  অসংখ্য ধন্যবাদ জানাই  পিকেআর নেট  ব্লগ - এর পক্ষ থেকে | 
পোস্টটা ভালো লেগে থাকলে অবশ্যই একটু Comment করে তোমার মতামত আমায় জানিও |তোমার মূল্যবান মতামত আমাকে বাড়তি অনুপ্রেরণা যোগাতে ভীষনভাবে সাহায্য করে।

No comments:

Post a comment