Thursday, 20 February 2020

আপনার অনুপ্রেরণামূলক দক্ষতা কীভাবে উন্নত করবেন, সিরিজ-৮৪(প্রেরণা)[How to Improve Your Motivational Skill, Series-84(Prerana)]

প্রেরণা সিরিজ - ৮৪,PRERANA SERIES-84(Motivational & Inspirational)
লেখক – প্ৰদীপ কুমার রায়।

আগেই বলে নিচ্ছি কেননা তোমরা পরে ভুলে যাবে বাকি অন্যান্যদের  সাহায্যের উদ্দেশ্যে শেয়ারটা মনে করে,করে দেবে এবং ডানদিকের উপরের কোনে অনুসরণ বাটন অবশ্যই ক্লিক করে অনুসরণ করবে।শুরু করছি আজকের বিষয় 
নমস্কার বন্ধুরা আমি প্রদীপ  তোমাদের সবাইকে আমার এই Pkrnet Blog   স্বাগতম।আশা করি সবাই তোমরা  ভালোই  আছো  আর  সুস্থ আছো।
  


সারাদিনের কাজের মধ্যে অনন্ত কিছু সময় এমন একটা জিনিষ চিন্তা করতে হবে যা প্রশস্ত অর্থাৎ যেটা আমাদের উদ্দেশ্যকে স্মরণ করিয়ে দেয় । যখন চিন্তা হয়, তখন চিন্তা-ভাবনা করে কাজ করতে হয়, তাতেই ফল পাওয়া যায়।  বিনা কারনে এজগতে কখনও কিছু হয়েছে? সম্রাট মান্ধাত্বার পুত্র মুচকুন্দ যুদ্ধ করে পৃথিবীকে জয় করে ছিলেন। এরপর তিনি রাজত্ব ত্যাগ করেছিলেন বিশ্রাম করার জন্য। সেই ব্যক্তিই জ্ঞানী যে জেনে যায় যে সংসার হলো শ্রম আর তপস্যা হলো একমাত্র বিশ্রাম। অধিকতর ব্যক্তিতো সংসারের শ্রমকে সুখ মনে করে আর ক্লান্ত হতে থাকে, কিন্তু বিশ্রামের কথা তো কেউ চিন্তাও করে না।  মহর্ষি মুচকুন্দ শতবর্ষ যাবদ তার দুচোখ খোলেন নি। ওনার তপস্যার ফলে এত শক্তি একত্র হয়ে গিয়েছিল  যে প্রথমবার তিনি যখন চোখ খোলেন তখন তার দৃষ্টি যবন কাল্যভানের  উপর পরে আর পরাক্রমী  কাল্যভান  তৎক্ষণাৎ ভস্মীভূত হন। সবারই নিয়তি পূর্বনির্ধারিত হয়ে আছে, কেউ কেউ নিমিত্ত ও নিয়তির মিলন ঘটানোর প্রচেষ্টা করতে পারে মাত্র। 


মানুষ সর্বদা বুদ্ধি আর পরিস্থিতি অনুযায়ি অর্থ খুঁজে নেয়। মেঘ জল হয়ে পড়ে, ময়ূর নৃত্য করে কিন্তু পাপিয়া ক্রন্দন করে। কারো কথার বাস্তবিক অর্থ তো কোনো বুদ্ধিমান ব্যক্তিই সম্পূর্ণ গ্রহণ করতে পারে। যারা বুঝতে পারে না তাদের দ্বারাই অনর্থ  ঘটে এই বিশ্বে, আর যারা এটা বুঝতে পারে, তাদের দ্বারাই মহৎ কাজ সম্পন্ন হতে পারে। কারো সহায়তা করলে সর্বদাই শক্তি বৃদ্ধি পায়। বাস্তবে প্রত্যেক প্রাণীর নিজের ইচ্ছামতো বাঁচার অধিকার আছে। কারো স্বতন্ত্রতা ছিনিয়ে নেওয়া সর্বদাই অধর্মের।এই সত্য যদি আমরা হৃদয়ে গেঁথে নিই যে না আমরা ভবিষ্যৎ দেখতে পাই, না আমরা ভবিষ্যৎ নির্মাণ করতে পারি, আমরা তো কেবল ধৈর্য্য আর সাহসের সাথে  ভবিষ্যতকে  আলিঙ্গন করতে পারি ,  স্বাগত জানাতে পারি ভবিষ্যতকে ,আর তবেই কি জীবনের প্রতিমুহূর্ত  জীবনের দ্বারা মুখরিত হয়ে উঠবে না?বাস্তবে শান্ত মনে যে ব্যক্তি  নির্ণয় নেয়,  সে নিজের জন্য সুখময় ভবিষ্যতের দান করতে পারেন।  কিন্তু নিজের মনকে শুধু  শান্ত করতেই  যদি কেউ কোন নির্ণয় নেয়,  তবে সে ব্যক্তি ভবিষ্যতে নিজের জন্য কাঁটাবৃক্ষ রোপণ করেন ।


কালের অর্থই হলো মৃত্যু।  এমন কোনো ক্ষণ নেই জীবনে, যখন মৃত্যু এগিয়ে আসছে না। মৃত্যু সবার হবে  কারণ যাদের জন্ম হয়েছে  তাদের  মৃত্যু হবেই  এবং এটাই অবশ্যম্ভাবী।  জন্মের পরে মৃত্যু আবার মৃত্যুর পরে জন্ম। এটা একটা স্বাভাবিক নিয়ম। আমরা সবাই মৃত্যুদণ্ডে দণ্ডিত  এবং আমাদের সবার মৃত্যু হবে। প্রতিদিন এবং প্রতিনিয়তই আমরা সেইদিকে একটু একটু করে এগোচ্ছি । কেউ দেরীতে , কেউ দ্রুত সেখানে পৌঁছাবে । যে সকল বস্তুর জন্ম আছে , তার পরিণতি অবশ্যই  মৃত্যুতে । সংযোগের পরিণতি বিয়োগে ; যা কিছু রচিত হয় তার পরিণাম স্ব স্ব অংশে ফিরে যাওয়া। জন্মের পরিণাম মৃত্যু এবং মৃত্যু থেকেই জন্মের সুচনা—এ হলো প্রকৃতির নিয়ম। এই মৃত্যুর মুখোমুখি দাঁড়িয়ে জীবনকে এগিয়ে নিয়ে যেতে যে মানসিকতার দরকার তাই হল চ্যালেঞ্জ অ্রর্থাৎ মৃত্যুর মুখোমুখি দাঁড়াবার জন্য আমাদের প্রত্যেকের উচিৎ মানসিকতার পরিবর্তন করা। আর এই চ্যালেঞ্জই মানুষকে শান্তি ও সমদৃষ্টি লাভ করতে সাহায্য করবে । মৃত্যুর মুখোমুখি দাঁড়াবার মানসিকতা শান্তির চাবিকাঠি , জীবন সমস্যা সমাধানের পথিক  এবং মৃত্যু খুবই স্বাভাবিক ও অপরিহার্য্য ঘটনা যা মানুষকে বিপদমুক্ত করবে এবং সংসারবন্ধন শিথিল করে দুঃখ , বেদনা ও তৃষ্ণার হাত থেকে মুক্তি দেবে। তাই মৃত্যুই হচ্ছে দৈহিক , মানসিক ও আধ্যাত্মিক ব্যধিসমূহের নিরাময়ের মহৌষধি । জন্ম আর মৃত্যু যেখানে এক সেখানেই সৃষ্টিকারীর অবস্থান । সুখ আর দুঃখ আলাদা কিছু নয়। জয় ও পরাজয় দুটিই সমান। মৃত্যু সবার কাছে আসে কারণ যা জন্ম নেয় তাকে  মরতে হয় কিন্তু আপনার কর্মই  আপনার মৃত্যু স্থির করে । তাই সে নিয়ে চিন্তা করে কি হবে? 


জীবনে অনুপ্রেরণার গুরুত্ব যে কতটাতা আমরা কমবেশি  প্রত্যেকেই জানিপ্রত্যেক মানুষই চায়  তারা যেন সর্বদা অনুপ্রাণিত থাকেন। 
এই অনুপ্রেরণা মূলক বিচার গুলিকে বাস্তব জীবনে ঠিক  মত মেনে চললে যে কোনো মানুষের জীবন অনয়াসেই বদলে যেতে পারে। 

মোটিভেশনাল ভিডিও দেখতে উপরের ডানদিকের কর্নারে YouTube লিঙ্ক অথবা এখানে Pkrnet এই লিঙ্কটির উপর ক্লিক করুন।
এতক্ষণ সময় দিয়ে পড়ার জন্যে তোমাকে  অসংখ্য ধন্যবাদ জানাই  পিকেআর নেট  ব্লগ - এর পক্ষ থেকে | 
পোস্টটা ভালো লেগে থাকলে অবশ্যই একটু Comment করে তোমার মতামত আমায় জানিও |তোমার মূল্যবান মতামত আমাকে বাড়তি অনুপ্রেরণা যোগাতে ভীষনভাবে সাহায্য করে।

No comments:

Post a comment