Tuesday, 6 August 2019

How to Improve Your Motivational Skill, Prerana Series-6

 প্রেরণা সিরিজ - ৬
 লেখক - প্রদীপ কুমার রায় ।
  (শৃঙ্খলা ও শক্তি -১)
                                                                        ইচ্ছাশক্তি জীবনের একটি গুরুত্বপূর্ণ  অংশ যা যথাযথ ভাবে অভ্যাসের ফলে জীবনের গুরুত্বপূর্ণ  সিদ্ধান্তগুলো নিতে সাহায্য করে। যারা দৃঢ় মানসিক শক্তি এবং নিয়মানুবর্তিতার মাধ্যমে সফলতা লাভ করেছেন,তাদের প্রত্যেক মানুষই প্রশংসা  এবং শ্রদ্ধা করেন। কারন তাঁরা আত্মচেতনা এবং ইচ্ছাশক্তির দ্বারা বিভিন্ন কষ্ট ও দুর্ভোগকে উপেক্ষা করে নতুন দক্ষতা অর্জন করেছেন এবং নির্দ্দিষ্ট লক্ষ্যে সফলভাবে পৌঁচেছেন । এই আত্মচেতনা এবং ইচ্ছাশক্তি কেবলমাত্র সফল  ব্যক্তিদের মধ্যে আছে তা নয় , এই গুণগুলি সকলের ভিতরেই  আছে এবং তা কেবল  তাদের নিয়মিত অভ্যাস এবং প্রশিক্ষণ দ্বারাই জাগ্রত করতে পারা  যায়।ইচ্ছাশক্তি এবং আত্মশৃঙ্খলা মানুষের অন্তর্নিহিত শক্তির গুরুত্বপূর্ণ  স্তম্ভ এবং সর্বকালে এই দুটি শক্তিকেই সাফল্যের চাবিকাঠি হিসাবে মানা হয়। এই দুটি শক্তির শিক্ষা নেওয়া যায় এবং ধীরে ধীরে উন্নতিসাধন করা যায়, ঠিক যেমনটি করা যায় অন্য কোনো দক্ষতা অর্জনের ক্ষেত্রে ।
 

Whistler 
                                         এখন জানতে হবে এই শক্তিগুলি কি---  এটা হলো মনের  অন্তরস্থ  সেই  শক্তি  যা মানুষকে সাহায্য করে বাইরের জগতের বাধা বিপত্তিকে  অগ্রাহ্য  করে  সক্রিয়ভাবে  সিদ্ধান্ত এবং  তাঁর  লক্ষ্যে পৌঁছনোর ইচ্ছাকে সুসম্পন্ন করতে। এটা  তার  অলসতা  ,  উত্তেজনা  এবং  কুঅভ্যাস পরিত্যাগ  করার  সামর্থ্য  প্রদান করে  এবং পরবর্তী  পদক্ষেপ নিতে সাহায্য করে তা যতই কষ্টকর হোকই  না কেন । 
                                 শৃঙ্খলা জীবনের আর একটি অঙ্গ যা শক্তি সঞ্চয়ে সাহায্য করে। শৃঙ্খলাকি ---এটা  হলো সেই শক্তি যার সাহায্যে তাৎক্ষণিক সুখ এবং তাৎক্ষণিক সন্তোষ লাভের  বাসনাকে পরিহার করে পরবর্তী লক্ষ্যে পৌছাঁনো যায়। নিজের উন্নতি এবং সাফল্য যা নিজের কাজ, চিন্তা বা ব্যবহারের প্রতি লেগে থাকার সামর্থ্যের দ্বারা সুস্পষ্টভাবে দেখানো যায়।এটাও একটা  সাফল্য  এবং শক্তির স্তম্ভ ।  কেউ  যদি  নিজেকে  খুব  সাধারণ  ভাবে,  তাহলে তাঁর ভিতর যে গুণসম্পন্ন বস্তু আছে তা তাঁর কোনো কাজে না লেগে তাঁকে একটি বিশৃঙ্খল অবস্থায় নিয়ে যাবে যা তাঁর উত্তরণ আটকিয়ে নিচের দিকে নিয়ে যাবে। তাই নিজেকে কখনও  সাধারণ ভাবা উচিত নয় ।
                                                                               কেউ যদি ভাবে যে সফল ব্যক্তিরা অসাধারন প্রতিভা নিয়ে জন্মেছে এবং তাঁর সেই প্রতিভা নেই তাহলেও কিন্তু মেধাশক্তি কম নাও থাকতে পারে। এটা বোঝানোর জন্য  নীচে একটি সূত্র দেওয়া হলো যা গুলাবের অনুসন্ধানের ফসল।

শক্তি  (যে কোনো শক্তি -- যেমন মেধাশক্তি ) = প্রতিভা x সঞ্চয়  ( অধ্যাবসায় , অনুশীলন , জ্ঞান এবং অভ্যাসের জন্য ব্যয় করা সময় )।
          
                                   অর্থাৎ উপরের সূত্র থেকে বোঝা যাচ্ছে যে যাদের প্রতিভা কম তাদের সঞ্চয়  ও অভ্যাসে বেশি সময় দিতে হবে এবং তার ফলে যাদের প্রতিভা বেশি  তাদের  সমান  ও বেশি মেধাশক্তির অধিকারী হতে সমর্থ  হবে। যুক্তি, শ্রদ্ধা  আর আত্মবিশ্বাসই  মানসিক শক্তির সোপান।      

মোটিভেশনাল ভিডিও দেখতে উপরের ডানদিকের কর্নারে YouTube লিঙ্ক অথবা  এখানে Pkrnet এই লিঙ্কটির উপর ক্লিক করুন।




No comments:

Post a Comment